কিভাবে বর্ষাকালেও যত্নে রাখবেন কাঠের আসবারপত্র

কিভাবে বর্ষাকালেও যত্নে রাখবেন কাঠের আসবারপত্র

June 25, 2022

বর্ষাকালেও যত্নে থাকুক কাঠের আসবারপত্র

বর্ষাকালে কাঠের আসবাবপত্রের ক্ষেত্রে চাই বাড়তি যত্ন। নতুবা শখের আসবাবপত্রগুলোর দু’দিনেই নষ্ট হয়ে যাওয়া ছাড়া কোনো পথই খোলা থাকে না। তবে অনেকেই বর্ষাকালে এসে কাঠের আসবাবপত্রের যত্ন কিভাবে নিতে হয় তার সঠিক টেকনিক সম্পর্কে জানে না। চলুন তবে আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জেনে নিই, বর্ষাকালে এসেও কিভাবে শখের কাঠের আসবাবপত্রগুলোকে যত্নে রাখবেন সে ব্যাপারে!

ওয়াক্সিং

বর্ষাকালে কাঠের আসবাবপত্রকে নষ্টের মুখে ফেলে দিতে না চাইলে আজই তা ওয়াক্সিং করে নিন। এই কাজে আপনি চাইলে একটি নির্দিষ্ট ফি এর মাধ্যমে দক্ষ কোনো ব্যাক্তির সাহায্য নিতে পারেন। অন্যথায় বাজেট সম্পর্কিত সমস্যায় ভুগলে নিজেই কাজটি করে নিতে পারেন। যারা জানেন না তারা ইউটিউব কিংবা বিভিন্ন ব্লগ পোস্টের সাহায্য নিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনে নিয়ে আসুন এবং কাজে লেগে পড়ুন।

তবে কাঠের ওয়াক্সিংয়ের কাজটা বেশ শ্রমসাধ্য একটি কাজ। সুতরাং বুঝেশুনে আগানো উচিত। যার সাহায্যে কাঠের উপর একধরনের মোমের আবরণ দেওয়া হয়। এই আবরণ বর্ষাকালে কাঠের আসবাবপত্রকে নিরাপদে রাখতে সাহায্য করে৷ যারা ইতিমধ্যেই ওয়াক্সিং করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন তারা গ্রীষ্মকাল বা গরমের দিন থাকতেই কাজটি সেরে নিবেন। কেননা এতে শুকানোর একটা ব্যাপার থাকে। রৌদ্রজ্বল দিনে ওয়াক্সিংয়ের কাজ করাটা সবচেয়ে যুক্তিযুক্ত সিদ্ধান্ত হবে।

বার্নিশ

কাঠের বার্নিশ সিস্টেম সম্পর্কে তো মোটামুটি সকলেরই জানা আছে। প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানা না থাকলেও বার্নিশ যে করতে হয় এ-সম্পর্কে জানেন না এমন কাউকে হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। মনে রাখবেন এই বার্নিশ কিন্তু আপনার শখের কাঠ-জাতীয় আসবাবপত্রকে বর্ষাকালেও নিরাপদ রাখবে এবং নষ্ট হয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবে।

বর্তমানে বার্নিশ সিস্টেমে বেশ বৈচিত্র্যতা এসেছে। তবে তুলনামূলকভাবে পলিউরেথেন বার্নিশ প্রায় সকল ধরণের কাঠের আসবাবপত্রেই ব্যবহার করা যায়। সুতরাং আপনি এই ক্যাটাগরির বার্নিশের সাহায্য নিতে পারেন। তবে তার আগে কোনো দক্ষ ব্যাক্তির কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে নিতে পারেন। এতে করে পরবর্তীতে তা স্থায়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। আর হ্যাঁ! কখনও কখনও কাঠের একটি নির্দিষ্ট টোন দেওয়ার জন্য এক ধরণের হার্ড বেস বার্নিশ প্রয়োগ করার প্রয়োজন পড়তে পারে।

পানি থেকে দূরে রাখুন

বর্ষাকালে অব্যবস্থাপনার কারণে অনেক রুমেই পানি পড়ার সম্ভাবনা থাকে। তাছাড়া সারা বছর বিভিন্ন কারণে প্রিয় ফার্নিচারের উপর অসাবধানতায় পানি পড়ে যাওয়ার ব্যাপার তো আছেই! কারণে-অকারণে কাঠের জিনিসপত্রে যদি পানি ফেলা হয় তবে তা বর্ষাকালে না, তার আগেই নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সুতরাং পানি থেকে কাঠের সাহায্যে তৈরিকৃত শখের আসবাবপত্রকে দূরে রাখুন। সোফাসহ যেসব আসবাবপত্রে কভার সেট আপ করা যায় সে-সব আসবাবপত্র যথাসম্ভব কোনো ভালো কাপড় দ্বারা কভার করে রাখুন। এতে করে একেবারে ক্ষতির হাত থেকে বাঁচা না গেলেও মোটামুটি ক্ষতির পরিমাণ কম হতে পারে। পানির ব্যাপারে বলার সবচেয়ে বড় কারণ হলো কাঠের ক্ষেত্রে পানি ধরে রাখার ক্ষমতা থাকে। যা পরবর্তীতে বিভিন্ন ফ্যাঙ্কাশের সৃষ্টি করে। আবার এই ফ্যাঙ্কাশ কাঠ পঁচাতে খুব একটা সময় নেয় না!

ঘরের ভেতর রাখুন

অনেকের ধারণা কিছুদিন পরপর কাঠের আসবাবপত্রকে তীব্র রোদে শুকাতে দেওয়া হয় তবে তা দীর্ঘদিন ভালো থাকে। যা একেবারেই ভুল ধারণা। তীব্র রোদ এবং বর্ষাকালের পানি উভয়ই কাঠকে বিশেষ করে কাঠের জিনিসপত্রকে দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে সাহায্য করে৷

সুতরাং বুদ্ধিমানের কাজ হবে সবসময় কাঠের আসবাবপত্রকে ঘরের ভেতরেই যত্নে রাখা। বাড়তি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকটা হ্যান্ডেল করা। তবে ঘরের ভেতরেই রোদ আসে এমন স্থানে কাঠের আসবাবপত্র সেট-আপ করতে ক্ষতি নেই। শুধুমাত্র মাথায় রাখতে হবে রোদের তীব্রতার পরিমাণ যেনো অতিরিক্ত না হয়।

দেয়াল থেকে দূরে রাখুন

মনে রাখবেন বর্ষাকালে অবিরাম বৃষ্টির কারণে বাইরের দেয়ালের আর্দ্রতা বেড়ে যেতে পারে। যা রুমের দেওয়ালগুলিকে স্যাঁতসেঁতে করে তোলার ক্ষেত্রে যথেষ্ট! ফলস্বরূপ এসব দেওয়ালের কাছাকাছি যে কোনও কাঠের আসবাবপত্র সেই দেওয়াল থেকেই অতিরিক্ত আর্দ্রতা শোষণ করে নেয়। এই ধরণের পরিস্থিতি পরবর্তীতে কাঠের ফুলে যাওয়াসহ বিভিন্ন ছত্রাকজনিত সমস্যার সৃষ্টি করে।

আবার ছত্রাক কিংবা কাঠ ফুলে যাওয়ার ঘটনাটি যদি ঘটে আপনার কাঠের আলমারি বা বুকশেল্ফের ক্ষেত্রে তবে তো আরো বাড়তি সমস্যার দানা বাধে। আপনার প্রিয় কাপড় কিংবা বইগুলিও এসব সমস্যার সম্মুখীন হতে বাধ্য হয়। এই ধরণের সমস্যা এড়াতে আপনার প্রিয় কাঠের আসবাবপত্রগুলিকে দেওয়াল থেকে কমপক্ষে ৬ ইঞ্চি দূরে রাখার চেষ্টা করুন। বিশেষ করে বৃষ্টিপাতের সময় বাড়তি নজর দিন।

বৃষ্টিপাতের সময় দরজা জানালা বন্ধ রাখুন

বৃষ্টিপাতের সময় দরজা জানালা বন্ধ রাখলে বর্ষাকালে কাঠের আসবাবপত্রকে যথাসম্ভব সুরক্ষায় রাখা যায়। কেননা বাংলাদেশে বেশিরভাগ বাড়ি বা রুমে জানালার পাশেই সোফা কিংবা খাটের মতো গুরুত্বপূর্ণ ফার্নিচারগুলি সেটআপ করা হয়। যার ফলে বর্ষাকালেও বহাল তবিয়তেই আসবাবপত্রগুলি একই জায়গায় স্থায়ী থাকে।

তাই কাঠের আসবাবপত্রগুলির ক্ষতি হতে দিতে না চাইলে আজই জানালার পাশে রাখা ফার্নিচারগুলি অন্যকোনো স্থানে সেটআপ করার চেষ্টা করুন। সেটি যদি সম্ভব না হয় তবে শুধুমাত্র বর্ষাকালের জন্য অন্য কোথাও সেট-আপ করা যায় কিনা দেখুন। আর যদি সেটিও সম্ভব না হয় তবে বর্ষাকালে জানালা সবসময় বন্ধ করুন। এতে কিন্তু আপনি তিনটি ক্ষেত্রে লাভবান হচ্ছে। এক. আপনার কাঠের আসবাবপত্রগুলি নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থেকে রেহাই পাচ্ছে। দুই. বাসার ফ্লোর এবং ফ্লোরের রং ঠিক থাকছে। সবশেষে তিন. আপনার বাসার দেওয়াল এবং দেওয়ালের রঙও সেইফ থাকার সুযোগ পাচ্ছে।

শুকনো কাপড় ব্যবহার করুন

আসবাবপত্র পরিষ্কারের জন্য ভিজা কাপড় ব্যবহার করা এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। বাইরের কিংবা ভেতরকার সৌন্দর্য  স্থায়িত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে কাঠের আসবাবপত্র নিয়মিত পরিষ্কার করা প্রয়োজন। তবে এক্ষেত্রে কোনোমতেই ভেজা কাপড়ের সাহায্য নেওয়া যাবে না।

কাঠের আসবাবপত্রের পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন অভিযানে শুকনো কাপড় বা ব্রাশ ব্যবহার করুন। কারণ কাঠের উপরিভাগে ভেজা কাপড় ব্যবহার করা হলে তা পরবর্তীতে ধীরে ধীরে কাঠকে নষ্ট করে তুলে এবং উপরিভাগের বিভিন্ন উপাদানের ক্ষেত্রেও বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি করে। কাঠের জিনিসপত্র পরিষ্কারের ক্ষেত্রে শুকনো কাপড়ের পাশাপাশি ওয়ারড্রোবের ভিতরে কাপড় রাখার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে জামাকাপড় যেন পুরোপুরি শুকিয়ে যায়। কেননা ভেজা জামাকাপড়ও আপনার শখের ওয়ারড্রোবের বারোটা বাজিয়ে দিতে পারে।

বাসার মেঝে শুকনো রাখুন

আমরা বাংলাদেশীরা বেশির ভাগ সময়ই ভেজার কাপড় দিয়ে ঘর পরিষ্কার করি। যুক্তিসঙ্গত কারণে এতে ঘর দ্রুত পরিষ্কার হয়ে যায় এবং সহজেই কাজটি করা যায়। অনেকেই আবার বিভিন্ন ক্লিনার ব্যবহার করে। তবে সাধারণ মানুষ ফ্লো ড্রায়িং মেশিন ব্যবহার করা মতো ক্যাপাসিটি রাখে না। যার ফলে মেঝে মোছার তা শুকাতে বেশ খানিকটা সময় লাগে।

মনে রাখবেন মেঝে যদি ভেজা থাকে তবে সেখানে সেটআপ করা কাঠের আসবাবপত্রে ছত্রাকের আক্রমণ এবং তা ফুলে যাওয়াসহ বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। সুতরাং যথাসম্ভব ঘরের মেঝে শুকনো রাখুন। দরকার হলে ফ্যান চালিয়ে কিংবা দরজা-জানালা খুলে দিয়ে প্রাকৃতিক বাতাসের সাহায্যে মেঝে শুকিয়ে নিন। চাইলে আলাদা একটি শুকনো কাপড়ও ব্যবহার করতে পারেন। যদিও এক্ষেত্রে ডাবল শ্রম দিতে হবে। তবে শখের ফার্নিচারগুলি কিন্তু ক্ষতির হাত থেকে বাঁচার সুযোগ পাবে।

ইতি কথা

উপরের টিপসগুলি কিন্তু শুধুমাত্র বর্ষাকালের জন্যই নয়! আপনি চাইলে সারা বছরই এসব টিপস অনুসরণ করে কাঠের তৈরি আসবাবপত্রের যত্ন নিতে পারেন। টিকিয়ে রাখতে পারেন বছরের পর বছর। মনে রাখবেন, আপনার গৃহস্থালীর যত্ন ও সুরক্ষা আপনার হাতেই। আজ তাহলে এতোটুকুই! পরবর্তী আর্টিকেল উপভোগ করার আমন্ত্রণ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments