Old flat redecoration

Old Flat Fedecoration | Smart Ways To Make Your Old Flat Look Modern

February 9, 2022

ব্যবহৃত পুরাতন ফ্ল্যাটও হয়ে উঠতে পারে চমৎকার বসবাস উপযোগী। হোম ইন্টেরিয়র নিয়ে জানুন

অনেকদিন ধরে থাকতে থাকতে বাসা বেশ পুরনো মনে হচ্ছে? নিজের ঘর দেখতেই ভালো লাগছে না? কীভাবে নতুনত্ব ফিরিয়ে নিয়ে আসা যাবে তা নিয়ে দুঃশ্চিন্তা করছেন? দুশ্চিন্তা করে কি হবে, তাঁর চেয়ে চলুন জেনে নেয় কীভাবে নিজের ফ্ল্যাটে নিয়ে আসবেন নতুনত্ব আর প্রাণবন্ত ভাব।

পুরানো আসবাবপত্র পুনরায় সাজানঃ

আসবাবপত্রকে ভালোভাবে সাঁজাতে পারা বাসায় যেমন আভিজাত্য নিয়ে আসতে পারে, তেমনই আসবাবপত্র ভালোভাবে না সাঁজানো নিয়ে আসতে পারে বিরক্তির ভাব। ঘরের আকারের তুলনায় আসবাবপত্র বেশি হয়ে গেলে দেখতে ভালো লাগবে না। দরকারি জিনিসপত্র ছাড়া বাকি সব সরিয়ে ফেলতে পারেন। এতে ঘর যেমন খোলামেলা দেখাবে, মন তেমনই প্রফুল্ল আর প্রানবন্ত হয়ে উঠবে।

ড্রয়িং রুমে জমকালো আর বড় আসবাবপত্র রাখতে পারেন। ড্রয়িং রুমে রাখুন সোফা। সবচেয়ে সুন্দর আর খালি দেওয়ালটা টিভির জন্য রাখুন। তবে জানালা কিংবা লাইটের ঠিক বিপরীতে রাখতে যাবেন না। টিভির পাশেই সাজিয়ে দিন ছোট বুকসেলফ কিংবা শোপিসের র‍্যাক। সোফার মাঝে ছোট টেবিল রাখতে ভূলবেন না।

শোবার ঘরের মূল আসবাব হল খাট। খাট এমনভাবে রাখবেন না, যেন সামনে পিছনে জানলা থাকে। জানালার পাশে খাট রাখলে আলো আর বাতাস দুটোই বেশি পাবেন। আলমারি আর ড্রেসিং টেবিল রাখুন শোবার ঘরে।

ঘরে প্রবেশ করতেই জুতার ক্যাবিনেট। পাশে একটা চেয়ার দিয়ে দিতে পারেন। জুতার ক্যাবিনেটের উপর ফুলের টব বা একটা শো-পিস তো রাখতেই পারেন।

পুরানো ছবি বাঁধাই করুনঃ

অ্যালবামে পড়ে থাকা ছবি হয়তো বছরে একবারও দেখা হয়না। কিছু ছবি ফ্রেমে বাধাই করে ফেলুন। টাঙ্গিয়ে দিন দেওয়ালগুলোতে। এতে দেওয়ালের খালি খালি ভাব দূর হয়ে দেখতে বেশ ভালো লাগবে।

ফ্রেম মূলত দুই ধরনের পাওয়া যায়। হালকা আর ভারী। বিয়ে কিংবা পারিবারিক ছবিগুলো ভারী ফ্রেমে বাধাই করুন। বর্তমানে বিভিন্ন জিনিসের বানানো ফ্রেম পাওয়া যাচ্ছে। কাঠ, বেত, মাটি, সিরামিক, প্লাস্টিক, তামা, স্টিল, এমনকি হাতে বানানো ফ্রেমও পাবেন দোকানে গেলেই। দামও খুব একটা বেশি নয়। পিতল বা তামার ফ্রেম জমকালো ভাব ফুটিয়ে তুলতে বেশ কাজে দিবে।

ফ্রেম পছন্দ করার আগে দেওয়ালের অবস্থাটাও একবার দেখা উচিত। সব রঙ্গের ফ্রেম সব রঙ্গের দেওয়ালের সাথে খাপ খাবে না। তবে সাদা বা কালো ফ্রেম সব রঙ্গের দেওয়ালের সাথে বেশ মানিয়ে যাবে। ঘরে অভিজাত ভাব তুলে ধরতে চান? ফ্রেমিং করে একটি ক্যালিগ্রাফি সাজান দেওয়ালে। ক্যালিগ্রাফি দেওয়ালের সোন্দর্য্য বাড়িয়ে দিবে হাজারগুনে।

ফ্রেমের উপর স্পট লাইট দিলে ছবি দেখতে যেমন ভালো লাগবে, তেমনই ফুটে উঠবে স্নিগ্ধ ভাব।

সর্বত্র সবুজের ছোঁয়াঃ

গাছের সাথে আমাদের সম্পর্ক চিরদিনের। একটু প্রকৃতি বিলাস যেমন মনের প্রফুল্যভাব বাড়িয়ে দেয়, তেমনই জীবন্ত করে তোলে ঘরকে। কাজে একঘেয়েমি ভাব দূর করতেও গাছ বেশ ভাল ভূমিকা রাখে। আর এই বিষয়গুলোই গাছকে ঘর সাজানোর জন্য বেশ ভাল অনুষঙ্গী করে তোলে।

ঘরে প্রবেশপথেই টব দিয়ে রাখতে পারেন দুটো গাছ। ইনডোর প্ল্যান্ট হিসাবে কম আলোতে হয় এমন গাছ নির্বাচন করা উচিত। নইলে গাছ মারা যাবে।

জুতার র‍্যাক বা জুতার ক্যাবিনেটের উপর পাতাবাহার বেশ মানিয়ে যাবে। পড়ার বা কাজের জন্য নির্ধারিত টেবিলের উপর রাখতে পারেন সাকিউলেন্টস।  সাকিউলেন্টস জাতীয় বাগানবিলাসে পানি যেমন কম দিলেই চলে, তেমনই কম লাগে রোদ। পানি কম থাকায় কাদা হয় না।

ফলে রাখা যায় টেবিল কিংবা র‍্যাকের উপরেই। ঝোপ হয়না বলে বইয়ের ফাকেও রেখে দেওয়া যায়। গাছ বেশ ছোট থাকে। তাই জায়গা বদল করা যায় সহজেই। যত্নও খুব একটা লাগে না।

বেডরুমে রাখতে পারেন জুই বা বেলি ফুলের মত গাছ। ফুল ফুটলে সৌরভে চারদিক ভরিয়ে দেবে। রাখতে পারেন স্নেকপ্যান্ট। জানালার গ্রিল বেয়ে লতানো গাছ লাগাতে পারেন। গাছ লাগানোয় বাসা থাকবে ঠান্ডা। বারান্দায় প্রচুর রোদ পাওয়া যায় বলে যেকোনো ধরনের গাছ লাগাতে পারেন। তবে ছোট খাট গাছের মধ্যে গাদা, গোলাপ, ডালিয়া, হাসনাহেনা, পর্তুলিকার মত ফুলের গাছ লাগাতে পারেন।

বারান্দায় এলোভেরাও বেশ ভালো হবে। এই গাছ সৌন্দর্য্য বর্ধনে যেমনটা কাজে দিবে, তেমনই আছে এর ঔষধি গুনাগুন। এছাড়াও ছোট জারে ব্যাম্বো প্ল্যান্ট বা মানিপ্ল্যান্ট রাখতে পারেন। বারান্দায় শুধু নিচের টবে না, উপরে থেকে ঝোলানো টবেও লাগিয়ে দিতে পারেন গাছ।

নতুন করে আয়নার ব্যবহারঃ

আয়না আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। তবে এই আয়নাকে একটু ভিন্নভাবে ব্যবহার করে পুরোনো ফ্ল্যাটকে করে তুলতে পারেন অসাধারণ। ঘর ছোট দেখায়? দরজার সামনে থাকা দেওয়ালে বড় একটা আয়না লাগিয়ে দিন। বাসা অনেকটাই বড় মনে হবে।

লাইটের উজ্জলতা বাড়াতেও সাহায্য করতে পারে আয়না। ফ্রেমের আয়না বর্তমানে বেশ জনপ্রিয়। দেওয়ালের রং থেকে ভিন্ন রঙ্গের একটা ফ্রেম দিয়ে আয়না লাগিয়ে দিতে পারেন বসার ঘরে। আয়নার পাশে ছোট ছোট ছবি ফ্রেমে বাধাই করে সাঁজালে ভিন্ন মাত্রা পাবে আপনার বসার ঘর। আবার আয়নাকে ঘিরে সাজাতে পারেন গাছপালা বা শৌখিন জিনিসপত্র।

শোবার ঘরে জানালার বিপরীত দিকে আয়না লাগাতে পারেন। তবে বিছানার কাছাকাছি না লাগানোই ভাল। আয়নার ফ্রেম ছাড়া আয়না দেখতে খুব একটা ভাল লাগবে না। পাটি, কাঠ, মেটাল, হাতে আকা, পিতল, তামা এমনকি নকশি কাঁথা ধাচের ফ্রেম পাওয়া যায়। ধাতব দ্রব যেমন পিতল বা তামার ফ্রেম ব্যবহার করলে ঘরে আভিজাত্যের ছোয়া পাওয়া যাবে।

সারমর্ম

বলা হয়ে থাকে যে, রুচি কারো ব্যক্তিত্ত্বকে তুলে ধরে। কথাটা নিছক মিথ্যা নয়। আপনার পার্সোনালিটি বা ব্যক্তিত্ব কেমন তা আপনার রুচি দেখলেই বুঝা যায়। আর রুচিশীল ব্যক্তি সবসময় নিজেকে ও তার চারপাশের সবকিছুকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও নির্মল রাখতে পছন্দ করে।

আপনি যদি একটি পুরাতন ফ্ল্যাট কিনোট চান এবং ফ্ল্যাটের ইন্টেরিওর ছাড়া অন্য সব বিষয় ঠিকঠাক থাকে তাহলে আপনার সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাই। অথবা আপনার একটা পুরাতন ফ্ল্যাট থাকে এবং সেটা পুনঃরায় সাঁজাতে চান তাহলে পুরাতন ফ্ল্যাটটাও হয়ে উঠতে পারে নতুনের চেয়ে চমৎকার। উপরে উল্লিখিত আইডিয়াগুলো আপনার বাসাকে প্রাণবন্ত করে তুলতে সহযোগী হবে, সেই আশায় আজকের লেখাটি শেষ করছি।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments